আজ- রবিবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

দুদকের করা পৃথক ২ মামলায় পিরোজপুরের মেয়র দম্পত্তি আদালতে হাজির : শুনানী তারিখ বর্ধিত

পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের নামে দুদকের করা দুটি মামলার শুনানী তারিখ থাকলেও তা ০৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত করেছে সুপ্রিম কোর্ট এর হাইকার্ট ডিভিশন। আজ রোববার সকালে দুদকের করা দুটি মামলার শুনানীর জন্য সিনিয়র স্পেশাল জজ মো: মুহিদুজ্জামানের আদালতে শুনানীর জন্য হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের হাজির হলে গতকাল রাতে সুপ্রিম কোর্ট এর হাইকার্ট ডিভিশন একটি প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে ০৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সকরের অন্তবর্তী কালীন জামিন বর্ধিত করে। পরবর্তী শুনানীর তারিখ রাখেন আগামী সেপ্টেম্বর মাসের ০৬ তারিখে। এর আগে গত ২৮ মার্চ ওই দুই মামলায় মেয়র দম্পত্তি উচ্চ আদালত থেকে জামিন নেন।

এদিকে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নীলী রহমানের আদালতে হাজির হওয়াকে কেন্দ্র করে শহরে ও আদালত এলাকায় কয়েক স্তরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন। এ বিষয়ে কোন প্রকার বিশৃঙ্খলা না ঘটে তাই সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ, আর্ম পুলিশ ও র‌্যাব সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের দ¦ারা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়া হয়েছে আদালত ও এর আশেপাশের এলাকা।

জানাগেছ, পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক ও তার স্ত্রী নিলা রহমান সহ ২৮ জনের বিরুদ্ধে গত ১৮ মার্চ পৃথক ২টি মামলা দায়ের করেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এর একটিতে পৌরমেয়র ও তার স্ত্রী আর অন্যটিতে মেয়র সহ পৌর সভার ২৭ কর্মকর্তা কর্মচারীদের অভিযুক্ত করা হয়েছে। দুদকের সমন্বিত কার্যালয় বরিশালে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক আলী আকবর বাদী হয়ে মামলা দু’টি দায়ের করেন। এর একটি মেয়র মালেক ও তার স্ত্রী নিলা রহমানকে অভিযুক্ত করে জ্ঞাত আয় বর্হিভুত ৩৬ কোটি ৩৪ লাখ ৭ হাজার ৯৩২টাকার সম্পদ আর অন্যটিতে মেয়র মালেক ও পিরোজপুর পৌর সভার কাউন্সিলর আব্দুস সালাম বাতেন সহ পৌরসভার মোট ২৭ জনের বিরুদ্ধে পৌরসভার একটি নিয়োগে অবৈধভাবে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করেন দুদক।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি ও পৌরমেয়র হাবিবুর রহমান মালেক বলেন, ষড়যন্ত্রমূলক মামলা দেয়া হয়েছে আমাদের। পৌরসভার যে নিয়গে অভিযুক্ত করা হয়েছে সেখানে নিয়োগ বোর্ডেও সদস্যরা ছিলো আমি একা কোন নিয়োগ দেইনি। ২০১৮ সালে দুদক তদন্ত করে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রদিবেদন দিয়েছে আমি নির্দোষ কিন্ত ২০২১ সালে একই ঘটনায় মামলা কিভাবে দিলো জানিনা। আজকে যারা ক্ষমতায় তারা আওয়ামীলীগের দুরসময় কোথায় ছিল। ৭৫ এর ১৫ আগষ্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু হত্যায় আমি পিরোজপুরে প্রথম প্রতিবাদ করেছি। বিভিন্ন জায়গায় পেষ্টার লাগিয়েছি পিরোজপুরে জয়বাংলা শ্লোগান দিয়েছি। জামাত বিএনপি জোট সরকারের আমলে নির্যাতনের স্বীকার হয়েছি ১/১১ সময় দির্ঘদিন জেল খেটেছি আর এখন আওয়ামীলীগ ক্ষমতায় থাকা কালীন সময়েও আজ মমলা নির্যতনের স্বীকার হইতেছি। এখন যারা আওয়ামীলীগের নাম ভাঙ্গিয়ে লুটপাট করে তাদের বংশে কেউ কোন দিন আওয়ামীলীগ করেনি সব হাইব্রিট আওয়ামীলীগ। পিরোজপুরের আওয়ামীলীগ প্রায় ধ্বংশের পথে। তিনি এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি কামনা করেন। তাকে ও পরিবারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে উদ্দেশ্যমূলক ভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে এ মিথ্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে বলে জানান মেয়র হাবিবু রহমান মালেক।

উল্লেখ্য, দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপপরিচালক আলী আকবর এর আগে গত ২৭ ডিসেম্বর কমিশন তার সম্পদের বিবরনী চেয়ে তাকে, স্ত্রী মিসেস নিলা রহমান, কন্যা ও পুত্রের নাম উল্লেখ করে তাদের জ্ঞাত সম্পদের হিসাব ও তথ্য বিবরনী চেয়ে একটি নোটিশ প্রদান করেন। এ ছাড়া একই সাথে পৌরসভার ২৫ জন কর্মচারী নিয়োগে প্রতিজনের কাছ থেকে ৫ লাখ টাকা করে ঘুষ গ্রহন, বাস ও মিনিবাস থেকে অবৈধ চাঁদা আদায়, এলাকায় সিন্ডিকেটের মাধ্যমে ঠিকাদারী করার অভিযোগ করে এ নোটিশ প্রদান করা হয়। ওই নোটিশের যথাযথ উত্তর না পাওয়ায় পরে কমিশন তাকে (উপপরিচালক আলী আকবর ) এ বিষয়ে অনুসন্ধানের জন্য দায়িত্ব দেন। দীর্ঘ অনুসন্ধান শেষে পৃথক দু’টি মমালা দায়ের করে দুদক।

 

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,টপ নিউজ,ফিচার,বরিশাল বিভাগ,মিডিয়া,রাজনীতি,লাইফ স্টাইল,সারাদেশ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.