আজ- বৃহস্পতিবার, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

পিরোজপুরে আইনজীবীদের প্রতিবাদ সমাবেশ : চলছে আদালত বর্জন

পিরোজপুরে আইনজীবীদের সাথে রূঢ় ও অশালীন আচারণকারী জেলা জজ আ: মান্নানের পক্ষে বিএনপির নেতাদের বক্তব্য ও বিএনপি কর্তৃক আইন মন্ত্রী আনিসুল হকের পদত্যাগ চেয়ে যে বিবৃতি দেয়া হয়েছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে সমাবেশ করেছে জেলার আইনজীবীরা। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতের সামনে এ পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির আয়োজনে এ প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় এ সময় বক্তারা পিরোজপুরের সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে জামায়াত-বিএনপির বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়ন, আইনজীবীদের সাথে রূঢ় ও অশালীন আচারণ, জামিন বানিজ্যে, নিয়োগ বানিজ্যে সহ বিভিন্ন অভিযোগ করেন এবং বিএনপি কর্তৃক আইন মন্ত্রী আনিসুল হকের পদত্যাগ চেয়ে যে বিবৃতি দিয়েছে তা প্রতিবাদ জানান।
সভায় পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা কামল শামীম বলেন, স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়ন ও স্বাধীনতার পক্ষের চেতনায় বিশ^াসী আইনজীবীদের সাথে রূঢ় ও অশালীন আচারন করাই যেন প্রদান কাজ ছিল পিরোজপুরের সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের।
পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এ্যাড. দেলোয়ার হোসেন বলেন, পিরোজপুরের সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের জেলা আদালতে আসার পরপরই তিনি শহরের বিভিন্ন মহলে ও প্রশাসনিক বিভিন্ন অফিসে গিয়ে ফুল দিয়ে নিজের পরিচয় প্রদান করেছে। শহরের একটি ক্লাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগদান করে গোপনে জামায়ত-শিবির নেতা ও বিভিন্ন নাশকতার মামলার আসামীদের সাথে বৈঠক করে এবং তাদের সাথে আতআত করে তাদের বিরুদ্ধে মামলায় জামিন সহ নানা সুযোগ দিয়েছে এই জজ। এছাড়া জামিন বানিজ্যে, নিয়োগ বানিজ্যে সহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানের নামে শহরের বিভিন্ন স্থানে করতেন বিপুল পরিমানে চাঁদাবাজি। তাই জেলা আদালতে কর্মরত আইনজীবীরা এই জজের বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়মের প্রতিবাদ স্বরুপ আইনমন্ত্রীর কাছে তার আবেদন করে।
পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি কানাই লাল বিশ^াস বলেন, পিরোজপুরের সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নান আওয়ামীলীগ পন্থী তথা স্বাধীনতার পক্ষের আইনজীবীদের সাথে নানা ভাবে রূঢ় ও অশালীন আচারণ করতো আদাতলে কার্যক্রম চলাকালে। এ সকল বিষয় জেলার আইনজীবীরা সকারের আইনমন্ত্রীকে অবহত করার পরই তদন্ত করে সত্যতা পেয়ে আইন মন্ত্রী আইন মন্ত্রানালয়ের মাধ্যেমে জজ কে স্ট্যান্ড রিলিজ করেছে। কিন্তু বিএনপির ও স¦াধীনতা বিরোধীরা এ বিষয়টি নিয়ে মিথ্যাচার করছে।
পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট রফিকুল হক খান পান্না বলেন, জামায়াত-বিএনপির বিভিন্ন এজেন্ডা বাস্তবায়নই ছিল পিরোজপুরের সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের। এ কারনেই তিনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ^াসীয় আইনজীবীদের সাথে সব সময় কারণে ও কারণে রূঢ় ও অশালীন আচারণ করতো। এ সকল বিষয়ে আইনজীবী সমিতির সিদ্ধান্ত মোতাবেক সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে রেজুলেশন করে আইনমন্ত্রীর কাছে প্রেরণ করি। সেই বিষয়ে মন্ত্রানলয় থেকে তদন্ত করে তার সত্যতা পেয়ে সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানে স্ট্যান্ড রিলিজ করা হয়। কিন্তু জামায়াত-বিএনপির দোষর সাবেক জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের এই স্ট্যান্ড রিলিজের পরপরই জামায়াত- বিএনপির বিভিন্ন নেতাদের জেলা ও দায়রা জজ আব্দুল মান্নানের পক্ষে মায়া কান্নাই বলে দেয় যে তিনি কাদের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতো।
পিরোজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট এসএম বেলায়ত হোসেন, বিএনপির নেতাদের কান্নাই বলে দেয় জজ আব্দুল মান্নান পিরোজপুরে তিনি এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতেন। তিনি পিরোজপুরে জজ থাকাকালিন সময়ে বিভিন্ন নিয়োগে বানিজ্যে সহ জামিন বানিজ্যে করতেন। এ বিষয়ে জেলা আইনজীবী সমিতির রেজুলেশন করে এই জজের আদালত বর্জণ করেছেন। এ জজ যতক্ষন পর্যন্ত পিরোজপুরে থাকাবে ততক্ষন পর্যন্ত কোন আইনজীবী আদালতে যাবেন না।
সভায় জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকট এম এ হাকিম হাওলাদার বলেন, আইনজীবীদের সাথে রূঢ় ও অশালীন আচারণ করার জন্য আইনজীবীরা আদালত বর্জন করেছে এবং আইনমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেছে। আইন মন্ত্রী খোঁজ-খবর নিয়েই জজ আব্দুল মান্নানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এতে বিএনপির নেতাদের কেন এতো আর্তনাদ। আইন মন্ত্রীর এ সিদ্ধান্তে পিরোজপুরের সকল আইনজীবীরা খুশি এবং তারা আইনমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
এদিকে জজ আব্দুল মান্নান পিরোজপুর থেকে না চলে যাওয়া এখনো চলছে আইনজীবীদের আদালত বর্জন কর্মসূচি।

বিভাগ: জাতীয়,টপ নিউজ,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,রাজনীতি,সারাদেশ