আজ- মঙ্গলবার, ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুলাই, ২০২১ ইং

পিরোজপুরে দূযোগে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝেঢেউটিন চেক বিতরন এবং প্রাণীসম্পদ মেলার উদ্বোধন মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম

পিরোজপুরের নাজিরপুরে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন এবং উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে মুক্তিযোদ্ধাদের এক সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম এমপি। বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে একই স্থানে নাজিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ ওবায়দুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রাকৃতিক দূর্যোগ ও অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে ঢেউটিন ও টাকার চেক বিতরণ অনুষ্ঠান, ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্পের আওতায় মৎস্য চাষীদের প্রদর্শনী উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠান এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ, শিক্ষা বৃত্তি ও বাইসাইকেল বিতরণ এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী দরিদ্র জনগণের জন্য নির্মিত ঘর হস্তান্তর। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের নাজিরপুর উপজেলা সাবেক কমান্ডার শেখ আব্দুল লতিফ, উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অমূল্য রঞ্জন হালদার, প্রাণিসম্পদ বিভাগের বরিশালের বিভাগীয় প্রধান দীপক চন্দ্র রায়, ইউনিয়ন পর্যায়ে মৎস্য চাষ প্রযুক্তি সেবা সম্প্রসারণ প্রকল্পের প্রকল্প প্রধান মোঃ হাবিবুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

এ সময় মন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম বলেন, করোনা মহামারীর কারনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যেখানে ১ কোটি ৪০ লাখ লোকের ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে সেখানে আমাদের দেশে সকল প্রকার ভাতা চালূ আছে এবং প্রনোদনার পরিমান বাড়ানো হচ্ছে। এ থেকে প্রমান হয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে এ দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এ করোনা কালেও মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২০ হাজার টাকায় উন্নীত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার। শুধুমাত্র মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে ৯শত কোটি টাকা প্রনোদনা দেয়া হয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার প্রসঙ্গে তিনি বলেন যারা মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, ধর্ষন, অগ্নি সংযোগ, লুটতরাজের সাথে জড়িত ছিল, তাদেরকে জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়া জাতীয় পতাকা গাড়িতে উত্তোলন করার সুযোগ দিয়েছে। বঙ্গবন্ধু কন্যা এসব ঘৃনিত যুদ্ধাপরাধী ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিচারের ব্যবস্থা করে প্রমান করেছেন এদেশে অন্যায় করে কেউ পার পাবে না।
এসময় মন্ত্রী বলেন, মানুষের গড় আয়ু বাড়াতে হলে পুষ্টির চাহিদা বৃদ্ধি করতে হবে আর সে জন্য মাছ, মাংস, দুধ খেতে হবে। আমরা বেকার সমস্যা সমাধানে উদ্যোক্ততা তৈরী করতে চাই। সরকারের পক্ষ থেকে পুকুর খনন, পোনা প্রদান এবং প্রনোদনা দেয়া হচ্ছে। সমস্ত পৃথিবী যখন করোনা আক্রান্ত যেখানে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একদিন ১শত ৫৮ জন লোক মারা যায় সেদিন বাংলাদেশে মাত্র ১৫ জন লোক মারা গেছে এ থেকেই বোঝা যাচ্ছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ও তার সরকার কিভাবে কাজ করে যাচ্ছে। গত ২ বছর ভারত ও মায়ানমার থেকে কোরবানীর গরু না আনলেও ঘাটতি হয়নি। দুধ উৎপানে আমরা অচিরেই স্বয়ং সম্পূর্ণতা অর্জন করব। ২৭ প্রজাতির হারিয়ে যাওয়া দেশীয় মিস্টিপানির মাছ আবার ফিরিয়ে আনতে আমরা সক্ষম হয়েছি। কেউ যদি মাছ চাষ করতে চায় আমরা তার পুকুর খনন করে বিনা মূল্যে মাছের পোনাও সরবরাহ করব। এর ফলে গ্রামীণ অর্থনীতিও আরো স্বচল হবে।

মন্ত্রী এর পূর্বে সকাল ১১টায় নাজিরপুর স্টেডিয়ামে প্রাণিসম্পদ মেলার উদ্বোধন করেন। তিনি মেলার বিভিন্ন ষ্টল ঘুরে দেখেন এবং সেখানে আয়োজিত এক সমাবেশে বলেন করোনা প্রতিরোধে পুষ্টিকর খাবার এর কোন বিকল্প নাই। মাছ, মাংস, দুধ, ডিম পুষ্টিকর খাবারের শীর্ষে রয়েছে। করোনার সময়ও ভ্যানে করে পল্ট্রি মুরগী, ডিম ও দুধ বিক্রয় করে মানুষের চাহিদা পুরনে তার মন্ত্রনালয় সক্রীয় ছিল। অনুষ্ঠনে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আবু আলী মো: সাজ্জাত হোসেন, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন খামারীদেও ৪০ টি স্টল প্রাণীসম্পদ প্রদর্শনী করা হয়। এসময় প্রাকৃতিক দূযোগে ক্ষাতগ্রস্ত গোস খামারীদের গো খাদ্য ও ভিটামিন প্রদান করা হয়।

 

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,টপ নিউজ,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,মিডিয়া,রাজনীতি,সারাদেশ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.