আজ- শুক্রবার, ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

পিরোজপুরে নদী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছেন দুই মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার : পিরোজপুরে নদী ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন দুই মন্ত্রী। শুক্রবার সকালে পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম এবং পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক স্পিডবোটযোগে পিরোজপুর সদর, নাজিরপুর ও নেছারাবাদ উপজেলার ভাঙন কবলিত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন পানি উন্নয়ন বোর্ডের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং পিরোজপুরের জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন, পিরোজপুর পৌরসভার মেয়র ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মো: হাবিবুর রহমান মালেক।
ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শনকালে পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক নদী ভাঙনের শিকার নদী তীরবর্তী মানুষের ভোগান্তির কথা শোনেন এবং এসব এলাকায় বাধ নির্মানের আশ্বাস দেন মন্ত্রী। এর আগে সকালে পিরোজপুর সার্কিট হাউজে পৌছালে দুই মন্ত্রীকে গার্ড অব অনার প্রদান করে পুলিশের সু-স্বজ্জিত একটি দল। পরবর্তীতে তারা সেখান থেকে পিরোজপুরের বলেশ্বর নদীর খেয়াঘাট পরিদর্শন করেন। এই নদীর পাড়ে একটি শহর রক্ষা বাধ নির্মান করা হবে বলে জানান মন্ত্রী।
এরপর হুলারহাট বন্দর থেকে স্পিডবোটযোগে কালিগঙ্গা ও সন্ধ্যা নদীর ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন। এরপর শ্রীরামকাঠিতে ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের কথা শোনেন পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী এবং দ্রুত তাদের সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন।
এরপর দুপুরে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম জেলার নাজিরপুর উপজেলার নাজিরপুর-বৈঠাকাটা সড়কের ৫০০০ মিটার চেইনেজে কালিগঙ্গা নদীর উপর নির্মিত শেখ হাসিনা সেতুর উদ্বোধন করেন। এ সময় মন্ত্রী বলেন,নাজিরপুরের দেউলবাড়ী, কলারদোয়ানিয়া ও মালিখালী ইউনিয়নের লোকজন সরাসরি নাজিরপুর হয়ে পিরোজপুর সদর সহ দেশের বিভিন্ন স্থানে খুব সহজেই যাতায়াত করতে পারবে। এছাড়া এ এলাকার সবজী চাষীরা সহজে তাদের ভাসমান পদ্ধতিতে চাষকরা সবজি দেশের বিভিন্ন এলাকায় পাঠাতে পারবেন।
উল্যেখ্য ২০১২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারী নাজিরপুর-বৈঠাকাটা সড়কের কালিগঙ্গা নদীর ওপর সেতু (পি.সি গার্ডার ব্রীজ) নির্মাণের কাজ শুরু হয়। সেতুটির পশ্চিম পাশে নাজিরপুরের শাখারীকাঠী ইউনিয়ন এবং পূর্ব পাশে একই উপজেলার দীর্ঘা ইউনিয়ন অবস্থিত।
পিরোজপুর এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী সুশান্ত রঞ্জন রায় জানান, ৩৬০ মিটার দৈর্ঘ্য এবং ৮ দশমিক ৪ মিটার প্রস্থের এ সেতুটির নির্মাণে ব্যায় হয়েছে ৩৯ কোটি টাকা। কিছুদিন আগে এ সেতুর নির্মণ কাজ শেষ হয়। এলজিউিডির নিজস্ব অর্থায়নে সেতুটি নির্মাণ করা হয়। এখন সর্বসাধারনের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হলো।
বিকেলে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী এডভোকেট শ ম রেজাউল করিম পিরোজপুরে বাংলাদেশ কৃষকলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় যোগ দিবেন।

বিভাগ: বরিশাল বিভাগ