আজ- শনিবার, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

পিরোজপুরে পানের ফলন নিয়ে দুশ্চিন্তায় পান চাষীরা

এবছর ফলন ভালো হলেও অব্যাহত শীত ও কুয়াশার কারনে পিরোজপুর সদর উপজেলার পান চাষীরা ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। সারা বছর পানের বরজে কাছ করে এ সময় কিছুটা আর্থিক লাভের মুখ দেখেন পান চাষীরা। কিন্তু এবছর শীত ও কুয়াশায় পানের বরজের লতা থেকে পান পাতা হলুদ হয়ে ঝরে যাচ্ছে,আবার ইদানী,পছলা পোকাসহ বিভিন্ন পোকার আক্রমণে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে পান। শীত ও কুয়াশার প্রভাবে লতা থেকে ঝড়ে পড়া ও বিভিন্ন পোকার আক্রমণে নষ্ট হচ্ছে পান। এতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে পান চাষীরা। এভাবে চলতে থাকলে লাভ তো দূরের কথা আসল টাকাই আসবে না বলে পান চাষীদের ধারনা । বর্তমানে পানের বাজার মূল্য পোন ( পানের একক ) প্রতি ১৫০-২০০ টাকা থাকলেও এ ঝরা পান বিক্রি হচ্ছে প্রতি পোন ৪০-৫০ টাকা দামে। পান চাষীদের দাবি প্রতিবছর শীতের সময় তারা পানের বরজে পলিথিনের আচ্ছাদনে শীত ঠেকালেও এ বছর একই ব্যবস্থা করেও কোন কাজ হচ্ছে না। কয়েকদিন ধরে প্রতিটি লতার পান হলুদ হয়ে মাটিতে পড়ে যাচ্ছে। চাষিরা এসমস্যার কথা কৃষি অফিসে বারবার জানালেও তাদের তেমন কোন সহযোগিতা করা হচ্ছে না তাই সরকারের কাছে তাদের দাবি ক্ষতিগ্রস্থ চাষিদের যেনো সকল সহযোগিতা করা হয়।

এ নিয়ে  উপজেলা কৃষি অফিসার শিপন চন্দ্র ঘোষ জানান , পান নিয়ে চাষীদের প্রশিক্ষন ও ক্ষতি কমাতে বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু এ বছর শীত বেশি থাকার কারনে পান পাতা ঝড়ে যাচ্ছে।  এবছর পিরোজপুর সদর উপজেলায় ৭৪ হেক্টর জমিতে পান চাষ হচ্ছে। সরকারীভাবে আর্থিক সহযোগীতা পেলে ক্ষতিগ্রস্থরা ঘুড়ে দাঁড়াতে পারবে এমনটাই প্রত্যাশা এ উপজেলার পান চাষীদের।

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,ফিচার,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,সারাদেশ