আজ- সোমবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

ভারতের কারাগারে ৯ মাস পর তেকে ফিরল ৩ শিশু |মা বাবার কোলে !

অবশেষে ৯ মাস পর তিনশিশু ভারতের কারাগার থেকেমুক্তি পেয়ে ফিরল মা বাবার কোলে। তিন শিশু ভারত থেকে২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে মা বাবার সাথে বাংলাদেশে ফিরছিল কিন্তু মা বাবা সহ শিশু তিনটিকে ভারতীয় পুলিশ আটক করে। মা বাবাকে আলাদা জেলে এবং শিশু তিনটিকে পৃথক পৃথক জেলে পাঠায়। এক মাস পর মা বাবা মুক্তি পেলেও শিশু তিনটি কোথায় আছে তার কোন সন্ধান পায়নি তারা। পরে বাংলাদেশে ফিরে এসে তারা তাদের সন্তান ফেরত পাবার জন্য দেশের বিভিন্ন দপ্তরে ঘুরে কোন ফল না পেয়ে স্থানীয় প্রেসক্লাবে এসে সন্তানদের পিতা নান্টু ফরাজী ভারত থেকেজেল খেটে ফেরা সহ তিন সন্তানের কথা বলেন।
তখন প্রথমে দৈনিক সমকালে এবছর ২০ মে তিন শিশু ৫ মাস ধরে ভারতের কারাগারে শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ করলে সংবাদটি নিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম সহ সরকারের দায়িত্বশীলদের নজর পরে। তখন জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে শিশু তিনটির ছবি সহ সকল তথ্য মন্ত্রনালয় পাঠানো হয়। মন্ত্রনালয়ের যোগাযেগের ফলে দুই দেশের সকল আইনি প্রক্রিয়া শেষে গত শনিবার পুত্র রায়হান (৯) এবং সোমবার কণ্যা শিশু তানিয়া আকতার (১৩) ও হেনা আকতার (১১) কে ভারতীয় বিএসএফ বর্ডারগার্ড বাংলাদেশের বেনাপোল চেকপোষ্টে ক্যম্পে হস্তান্তর করে ।বর্ডারগার্ড বাংলাদেশের সদস্যরা শিশু তিনটিকে বেনাপোলপোর্ট থানায় হস্তান্তর করেন।
বেনাপোল থানা থেকে শিশু তিনটির পরিবারে খবর দিলে দিলে তাদেরকে রোববার পুত্র রায়হান কে ও মঙ্গলবার কন্যা তানিয়া আকতার ও হেনা আকতার কেতাদের মা বাবা থানা থেকে বাড়ীতে নিয়ে আসে । এছাড়া একই উপজেলার বালিপাড়া গ্রামের মাছুমের ছেলে নাইম (১২) নয় মাস পর ভারতের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে রোববার মা বাবার কাছে ফিরে এসেছে।
জানা যায়, উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের নান্টু ফরাজী ও তার স্ত্রী লাকী বেগম দুই শিশু কন্যা ও এক শিশু পুত্র কে নিয়ে ২০১৮ সালের ১৯ নভেম্বর ভারতের দিল্লী থেকে বাংলাদেশে ফেরার পথে ভারতের বনগাঁ জেলার গোপাল নগর থানায় তাদের কে আটক করে। পরে পুলিশ তাদেরকে ভারতের বনগাঁও আদালতে পাঠালে নান্টু ফরাজী ও তার স্ত্রীকে দম দম সেন্ট্রাল জেলে এবং তিন সন্তান তানিয়া আকতার (১৩),হেনা আকতার (১১) ও রাহান উদ্দিন ফরাজী (৯) কে পৃথক জেলে পাঠায়। এক মাস পরে আদালতের নির্দেশে পিতা মাতাকে মুক্তি দিয়ে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেয় কিন্তু শিশু তিনটি থাকে সেইফ হোমে। অবশেষে নয় মাস পর তিন সন্তানই মা-বাবার কোলে ফিরল।
শিশুদের পিতা নান্টু ফরাজী জানান, নয় মাস আগে আমি ও আমার স্ত্রী তিন শিশু সন্তানকে নিয়ে ভারতে থেকে দেশে ফেরার পথে ভারতের পুলিশ তিন সন্তান সহ আমাদেরকে আটক করে পৃথক জেলে পাঠায়। এক মাস পর আমরা মুক্তি পেলেও তিন সন্তানের কোন সন্ধান মেলে নি। অবশেষে নয় মাস পর তিন সন্তানকে ফিরে পেলাম।
বেনাপোল পোর্ট থানার এএস আই আঃ লতিফ সাংবাদিকদের জানান, পিরোজপুর জেলার ইন্দুরকানী থানার তিন শিশু কে ভারত থেকে বিজিবির মাধ্যমে থানায় পাঠালে তাদেরকে তাদের পিতা মাতার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,টপ নিউজ,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,মিডিয়া,সারাদেশ