আজ- শুক্রবার, ৩রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৬ই এপ্রিল, ২০২১ ইং

মঠবাড়িয়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় পাল্টাপাল্টি মামলায় আতঙ্কে এলাকাবাসী: গ্রেফতার-২

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় আ’লীগ প্রার্থী (নৌকা প্রতীক) ও বিদ্রোহী প্রার্থী স্বতন্ত্র প্রার্থী (আনারশ প্রতীক) সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনায় মঠবাড়িয়া থানায় পাল্টাপাল্টি মামলায় দ’গ্রুপের ৪০ জনকে আসামী করা হয়েছে এবং দুই জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে গ্রেফতার হওয়া দুইজনের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পুলিশ। এ ঘটনায় অন্তত ২০ জনের বেশি আহত হয়েছেন এবং ১১ টি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় ৩নং মিরুখালী ইউনিয়নের নাগ্রাভাংগা গ্রামের বেশিরভাগ পুরুষ সদস্যরাই এলাকাছাড়া হয়ে গেছে। এলাকার মানুষের মধ্যে একরকম ভয় কাজ করছে অনেক এ মামলার আসামী রয়েছে আবার অনেক আসামী হওয়ার ভয়ে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। এ ইউনিয়নের সাধারণ মানুষ ও ভোটাররাও রয়েছে আতঙ্কে। অনেকইে মনে করছেন এ হামলা ও মামলার রেশ ধরে আবারো বড় রকম সংর্ঘষের তৈরী হতে পারে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকেই অনেক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এ এলাকার নির্বাচন এবং নির্বাচন পূর্ববর্তী ও পরবর্তী সহিংসতা নিয়ে। তবে পুলিশ বর্তমান পরিস্থিতি সম্পূর্ন নিয়ন্ত্রনের কথা বললেও আস্থা পাচ্ছেন না এলাকার সাধারণ জণগণ।
রবিবার সন্ধ্যায় ৩নং মিরুখালী ইউনিয়নের নাগ্রাভাংগা গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনায় আ’লীগ সমর্থিত নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস ছোবাহান শরীফ এর পক্ষে তার ভাই বাদল শরীফ বাদী হয়ে ২৩ জনকে আসামী করে একটি মামলা দায়ের করেন অপর দিকে বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খানের সমর্থক গোলাম মোস্তফা ১৭ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।

আ’লীগ সমর্থিত নৌকার প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস ছোবাহান শরীফ জানান, শনিবার রাতে নাগ্রাভাংগা গ্রামের নুর মিয়া ফরেষ্টারের বাড়ীতে কর্মী বৈঠক শেষে সমর্থকরা বাড়ী ফিরছিল। এ সময় বিদ্রোহী প্রার্থী আবু হানিফ ও তার সমর্থক ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি লাভলু তালুকদার টহল পুলিশের উপস্থিতিতে কর্মী জাকির হোসেন,আলমগীর পঞ্চায়েত, আলামিন, নুর আলম, কবির হোসেন আহত হয়। আহতদের ওই রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে জাকির হোসেন ও আলমগীর পঞ্চায়েত, হেলাল, আবদুল হালিমকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

এদিকে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি বিদ্রোহী প্রার্থী আবু হানিফ খান বলেন, উঠোন বৈঠক চলাকালে উল্টো আ’লীগ প্রার্থীর পুত্র শাহীন শরীফ ও তার দলবল তার ছোট ভাইসহ ১০/১২জন সমর্থককে কুপিয়ে-পিটিয়ে জখম করে। আমার লোকজনকে মিথ্যা মামলা দিয়েছে এবং আমার কর্মী সমর্থকদের কে গ্রেফতার করা হচ্ছে। নৌকা সমর্থকদের ব্যাপারে পুলিশের তেমন কোন ভুমিকা নেই আমার সমর্থকদের কে হয়রানি করা হচ্ছে।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, এ ঘটনায় দ’গ্রুপের দুটি মামলা হয়েছে এবং দুইজন আসামী গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, শনিবার দিনগত রাতে মঠবাড়িয়ার ৩নং মিরুখালী ইউনিয়নের নাগ্রাভাংগা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে নির্বাচনী প্রচারণায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আ’লীগ সমর্থিত নৌকার চেয়ারম্যান প্রার্থী বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুস ছোবাহান শরীফ ও বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু হানিফ খানের আনারস প্রতীকের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হলে এক পর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। এ সময় ১১টি মটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ ও ভাঙ্গচুড়ের ঘটনাও ঘটে। এসময় দুই পক্ষের ২০ জনের বেশি আহত হয়।

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,টপ নিউজ,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,মিডিয়া,রাজনীতি,সারাদেশ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.