আজ- মঙ্গলবার, ১২ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৭শে জুলাই, ২০২১ ইং

পিরোজপুরে মা-বাবার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন ড. তারেক শামসুর রেহমান

শিক্ষক ও কলামিস্ট ড. তারেক শামসুর রেহমান পিরোজপুরে মা বাবার পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১০ টায় পিরোজপুর শহরের পুরাতন ঈদগাহ মাঠে মরহুমের জানাযা নামায শেষে পিরোজপুর পৌর কবরস্থানে মা বাবার কবরের পাশে ড. তারেক শামসুর রেহমান কে দাফন করা হয়েছে।

ড. তারেক শামসুর রেহমানের ভাই খালিদ শহিদুর রহমান মিঠু জানান, “ভাইয়ের স্ত্রী ও সন্তানের ইচ্ছায় প্রথমে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তাকে ঢাকায় দাফন করা হবে। কিন্তু আমার ভাইয়ের ইচ্ছা ছিল তাকে মা বাবার পাশে দাফন করা হবে। পরে ভাইয়ের শেষ ইচ্ছে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত হয় আমরা আমার ভাইয়ের লাশ ঢাকা থেকে পিরোজপুরে নিয়ে এসে পিরোজপুর পৌর কবরস্থানে বাব-মার কবরের পাশেই তাকে দাফন করা হয়”।

পিরোজপুর শহরের উকিলপাড়া এলাকার ১৯৫২ সালে জন্মগ্রহন করেন ড. তারেক শামসুর রেহমান। মরহুম এ্যাডভোকেট আতাউর রহমান ও শিরিন রহমানের বড় ছেলে ড. তারেক শামসুর রেহমান ছোটবেলা থেকেই তিনি ছিলেন অত্যান্ত মেধাবী। ড. তারেক শামসুর রেহমানের স্ত্রী শ্যামলী রহমান ও একমাত্র মেয়ে অনামিকা রহমান যুক্তরাষ্টের ট্রেক্সাসে বসবাস করছেন। তার পিতা মরহুম এ্যাডভোকেট আতাউর রহমান পিরোজপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ছিলেন। ৬ বোন ও ২ ভাইয়ের মধ্যে ড. তারেক শামসুর রেহমান সবার বড়। তার ছোট ভাই খালিদ শহিদুর রহমান মিঠু পিরোজপুরে সিনিয়র সাংবাদিক হিসেবে দায়িত্বরত আছেন। শিক্ষা জীবনের শুরুতে ড. তারেক শামসুর রেহমানের পিরোজপুর সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের থেকে ১৯৬৮ সালে এস এস সি পাশ করেন এর পরে দক্ষিণ বাংলার ঐতিহ্যবাহী পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজ থেকে ১৯৭০ সালে এইচ এসসি পাশ করে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্ট্রার্স পাশ করেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সরকার ও রাজনীতি বিভাগে শিক্ষকতা শুরু করেন তারেক শামসুর রেহমান। এরপর ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগ। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সাবেক সদস্য তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ও বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। বাংলাদেশ, দক্ষিণ এশিয়া ও বৈশ্বিক রাজনীতি নিয়ে অনেক গ্রন্থ রয়েছে প্রখ্যাত এই বিশ্লেষকের। বই লেখার পাশাপাশি তিনি বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে কলাম লিখতেন। দেশের অন্যতম সেরা রাজনৈতিক বিশ্লেষক হিসেবে খ্যাতি রয়েছে তারেক শামসুর রেহমানের। বছর দুই আগে অবসরে যান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষক। রাজধানীর উত্তরার নিজ ফ্লাটে একাই বসবাস করতেন তিনি।

ড. তারেক শামসুর রেহমানের উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে ইরাক যুদ্ধ-পরবর্তী আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু-মিত্র, নয়া বিশ্বব্যবস্থা ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতির চালচিত্র, উপ-আঞ্চলিক জোট, ট্রানজিট ইস্যু ও গ্যাস রফতানি প্রসঙ্গ, বাংলাদেশ: রাষ্ট্র ও রাজনীতি, বাংলাদেশ: রাজনীতির ২৫ বছর, বাংলাদেশ: রাজনীতির চার দশক, গঙ্গার পানি চুক্তি: প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বালাদেশ সম্পর্ক, বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর ইত্যাদি।

উল্লেখ্য, শনিবার (১৭ মার্চ) দুপুরে উত্তরা-১৮ নম্বর সেক্টরের রাজউকের আবাসিক প্রকল্পের দোলনচাপা বিল্ডিংয়ের ১৩০৪ নম্বর ফ্ল্যাট থেকে শামসুর রেহমানের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

 

বিভাগ: অন্যান্য,জাতীয়,টপ নিউজ,বরিশাল বিভাগ,ব্রেকিং নিউজ,মিডিয়া,শিক্ষাঙ্গন,সারাদেশ

আপনার মতামত দিন

Your email address will not be published.